আপডেট
১৩-০১-২০১৮, ২৩:৩৬
লাইফস্টাইল

আদর্শ কর্মীর নেপথ্যে কর্মদক্ষতা নাকি ব্যক্তিত্ব?

dokkho-kormi
কর্মক্ষেত্রে আপনার সফলতা কি শুধুই আপনার মেধার ওপর নির্ভর করে? নাকি ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে পড়াশুনা এবং রেজাল্টের ওপর নির্ভর করে? সম্প্রতি এই বিষয়টা নিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে একটা সমীক্ষা চালানো হয়েছে। ৫০০ জন বিজনেস লিডারকে নিয়ে করা আন্তর্জাতিক সমীক্ষায় দেখা গেছে উল্লেখযোগ্য ভাবে ৭৮ শতাংশ বিজনেস লিডার জানিয়েছেন, ব্যক্তিত্বই আমাদের যোগ্য কর্মী করে তোলে।

রেজাল্ট, মেধা, ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে পড়াশুনা সবই দরকার সফলতা অর্জনের জন্য। তবে সব চেয়ে বেশি দরকার আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্ব। অনেক সময় আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্ব বলতে আমরা প্রচুর আইকিউ রয়েছে এমন মানুষকে বুঝে থাকি। যেটা একেবারেই ভুল ধারণা। খুব মেধাবী জানা শোনা ব্যক্তিত্ব হলেই যে সেই কর্মী প্রতিষ্ঠানের জন্য নিজের সর্বোচ্চটুকু করবে কথাটা সব সময় ঠিক না। কারণ নিজেকে মেধাবী ভাবার কারণে অনেক সময় সে আত্ম-অহংকারী হয়ে থাকে। অপর দিকে যে একটু কম জানে, সে সহজেই তার আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্ব দিয়ে হাসিমুখেই সহকর্মীদের সঙ্গে সমঝোতা করে কঠিন কাজকে নিজের ঘাড়ে নিয়ে নেয় এবং একজন ভালো ব্যক্তিত্বের কর্মী প্রতিষ্ঠানের জন্য বড় সম্পদ।

ব্যক্তিত্ব বলতে বোঝায় আমাদের নিজস্ব পছন্দ-অপছন্দ এবং প্রবণতা যার উপর নির্ভর করে আমাদের আচরণ। অন্তর্মুখিতা বা বহির্মুখিতা ব্যক্তিত্বের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। খুব কম বয়সেই আমাদের ব্যক্তিত্বের মূল কাঠামো তৈরি হয়ে যায়। খুব কম বয়সেই আমাদের ব্যক্তিত্বের মূল কাঠামো তৈরি হয়ে যায়। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যা বিশেষ বদলায় না।

অনেক সময়ই ইন্টেলিজেন্ট কোশেন্ট বা আই কিউ-কে ব্যক্তিত্ব ভেবে ভুল করা হয়। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, আইকিউ নয়, ব্যক্তিত্ব গঠন করে আমাদের ইমোশনাল কোশেন্ট। যে সহকর্মীরা সকলের চোখে আকর্ষণীয় হয়ে ওঠেন, ইমোশনাল কোশেন্টই তাদের আকর্ষণীয় করে তোলে, ইন্টেলিজেন্ট কোশেন্ট নয়। যোগ্য নেতৃত্ব দেওয়ার মূলেও রয়েছে অধস্তনদের মধ্যে উন্নততর ইমোশনাল কোশেন্ট গড়ে তোলা।

এই ধরনের কর্মীরা আত্মবিশ্বাসী। তাঁরা কখনই ভাবেন না কোনটা তাঁর কাজের মধ্যে পড়ে, কোনটা পড়ে না। শুধু নিজের কাজ নয়, প্রত্যাশা না রেখেই এরা অন্যদের সাহায্য করে থাকেন। এরা কখনই ঝামেলা চান না, কিন্তু ঝামেলায় পড়লে এড়িয়েও যান না। বরং যুক্তি দিয়ে শান্ত ভাবে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করে থাকেন। এরা অন্যদের উত্সাহিত করেন। কেউ নিজের সমস্যা মুখ ফুটে বলতে না পারলেও এরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন।

নিজেদের ইগো নিয়ন্ত্রণে রাখাও এদের অন্যতম বড় গুণ। নিজের ভুল সহজেই স্বীকার করে নিতে পারেন এরা। কোনও কাজ বা পরিস্থিতি কী ভাবে আরও উন্নত করে তোলা যায় তা নিয়েও ক্রমাগত ভাবনা-চিন্তা করেন এই কর্মীরা। সাধারণত এই ধরনের কর্মীদের পেশাদার ভাষায় মার্কেটেবল বলা হয়ে থাকে। এদের যেমন সহকর্মীরা পছন্দ করে থাকেন, তেমনই যে কোনও সংস্থার কাছেও এরা সম্পদ।


সবচেয়ে বড় কথা এরা টক্সিক মানুষদের দমিয়ে রাখতে পারেন। যখনই টক্সিক মানুষদের সঙ্গে কাজ করতে হয় এরা নিজেদের অনুভূতির থেকে বেশি পরিস্থিতি ও যুক্তিকে প্রাধান্য দেন। তাই দক্ষতা, কাজের অভিজ্ঞতা, ডিগ্রি অবশ্যই উন্নতির জন্য প্রয়োজনীয়, কিন্তু এর কোনওটাই আপনাকে অন্যদের থেকে বেশি গ্রহণযোগ্য করে তুলবে না।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে