আপডেট
২২-০১-২০১৭, ০৮:০৭

বইমেলার আগেই কাগজের দাম বাড়ানোর অভিযোগ

paper-price
নতুন বছরে ক্যালেন্ডার ও ডায়েরির বাড়তি চাহিদার সাথে বই মেলাকে সামনে রেখে বেড়ে গেছে অফসেট ও আর্ট পেপারের দাম। প্রকাশক ও ছাপাখানা মালিকদের অভিযোগ, প্রতিবছরই বইমেলার আগে একটি সিন্ডিকেট কাগজের দাম বাড়িয়ে দেয়। এতে বেড়ে যায় বই প্রকাশের খরচ। অগ্রিম প্রস্তুতি থাকায় বড় প্রকাশনা সংস্থাগুলো এতে সমস্যায় না পড়লেও বিপাকে পড়ে ছোট সংস্থা।
এক্ষেত্রে বইয়ের মূল্য পাঠকের সামর্থ্যের মধ্যে রাখতে সৃজনশীল বইয়ের জন্য ভর্তুকি মূল্যে কাগজ সরবরাহের দাবি লেখকদের। তবে কাগজ ব্যবসায়ীদের দাবি, দাম সহনীয় পর্যায়ে আছে।

বইমেলাকে সামনে রেখে ডিসেম্বর থেকে শুরু হয় ছাপাখানাগুলোতে ব্যস্ততা। পাঠ্যপুস্তকসহ বই প্রকাশের এই ভরা মৌসুমে কোটি কোটি টাকার কাগজের ব্যবসা হয়। প্রকাশকদের অভিযোগ, বাড়তি চাহিদাকে পূঁজি করে বই মেলার আগে, শুধু কাগজ নয়, বেড়ে যায় আনুষঙ্গিক মুদ্রণ সামগ্রীর দাম। ছাপাখানা মালিকরা বলছেন, আমদানি কাগজের শুল্ক বেশি হওয়ায়, দেশীয় পেপার মিলগুলো পিক সিজনে কাগজের দাম বাড়ানোর সুযোগ পায়।

প্রকৃতি প্রকাশনার প্রকাশক সৈকত হাবিব বলেন, 'যেটা আগে ছিলো আঠারো শ' টাকার মতো সেটার দাম এরইমধ্যে দেড়শ' টাকা বেড়ে গেছে। কাগজের আমদানিকারক, সরবরাহকারী একটা চেইন আছে এবং তারা জোটবদ্ধ ভাবে এটা করে।'

বাংলাদেশ মুদ্রণ শিল্প সমিতির চেয়ারম্যান তোফায়েল খান বলেন, 'সারাবছর কাগজের দাম বাড়ে না। যখনই কোন মৌসুম আসে তখন তারা কাগজের দাম বাড়িয়ে দেয়। এখন প্রতি টন কাগজে তারা চার থেকে পাঁচ হাজার টাকা দাম বৃদ্ধি করেছে। এই মূল্যবৃদ্ধিটা নবীন প্রকাশকদের কাছে একটি বোঝা হয়ে দাঁড়ায়।'

তবে কাগজ ব্যবসায়ীদের দাবি, দেশী অফসেট পেপারের দাম খুব বেশি বাড়েনি।


কাগজ ব্যবসায়ী মো. আবুল বাশার বলেন, 'নভেম্বর ডিসেম্বর এবং জানুয়ারি মাসে প্রিন্টিংয়ের মৌসুম থাকে সে হিসেবে চাহিদা বেড়ে গেছে। খুচরা ও পাইকারি কাগজের দাম যতটুকু বাড়ার কথা তাও বাড়েনি।'

প্রকাশকরা বলছেন, শুধু সৃজনশীল বইয়ের জন্য ভর্তুকি মূল্যে কাগজ সরবরাহ করলে কম খরচে বই ছাপানো সম্ভব হতো।

বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল পুস্তক প্রকাশক সমিতির পরিচালক মোস্তফা সেলিম বলেন, 'সংবাদপত্রে সাবসিডি মূল্যে নিউজপ্রিন্ট সরবরাহ করা হয়। আমরা যেহেতু জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার সাথে জড়িত। অতএব আমাদেরও সাবসিডি মূল্যে কাগজ দেওয়া হোক। তাহলে বাইয়ের দামও কমে যাবে।'

বইমেলার মৌসুমে প্রায় দুই লাখ রিম কাগজের প্রয়োজন হয়। বর্তমানে প্রতি টন অফসেট পেপার বিক্রি হচ্ছে ৮২ থেকে ৮৬ হাজার টাকায়।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে